1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. banglaronusandhantv@gmail.com : বাংলার অনুসন্ধান : বাংলার অনুসন্ধান টিভি
বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২৭ পূর্বাহ্ন
"
ব্রেকিং নিউজ
শিরোনাম
মাগুরার মহম্মদপুরে মধুমতি নদীতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ ফ্রান্সে নবী (সা) এর ব্যঙ্গ কার্টুন প্রদর্শনের প্রতিবাদে মাগুরায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মোঃ রিপন হোসেন মাগুরায় যুবদলের ৪২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত মাগুরায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত বিহারী লাল শিকদার নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার প্রস্তুতিমূলক সভা স্বেচ্ছাসেবক লীগের দপ্তর সম্পাদক হলেন আজিজুল হক আজিজ মাগুরায় গড়াই নদীতে শেখ রাসেল নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষককে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা  কবি ফররুখ উদ্দিন আহমেদের ৪৬তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

এবারও চামড়ার মূল্য ধস, বিপাকে ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী ও এতিমখানা মাদ্রাসাগুলি

  • আপডেট করা হয়েছে শনিবার, ১ আগস্ট, ২০২০
  • ১১০ বার পড়া হয়েছে

ইউনুস আলী,স্টাফ রিপোর্টারঃ দীর্ঘকাল ধরেই বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ বাজার ও রপ্তানির জন্য চামড়া এবং চামড়াজাত সামগ্রী উৎপাদন করে আসছে। কাঁচা চামড়া এবং সেমিপাকা চামড়া বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী রপ্তানি সামগ্রী। সব সময়ই বিশ্ব বাজারে এ দেশের ছাগলের চামড়ার চাহিদা রয়েছে। গত দু দশকে এ খাতে উল্লেখযোগ্য আধুনিকায়ন ঘটেছে এবং এর ফলে বিশ্বে প্রথম শ্রেণির চামড়া ও চামড়ার তৈরি সামগ্রী প্রস্ত্ততকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ আত্মপ্রকাশ করেছে।

বিশ শতকের সত্তরের দশকের শেষ দিক থেকে পরবর্তী সরকারগুলি চামড়া শিল্পকে রপ্তানি মূল্যের ওপর ভর্তুকি প্রদান করে আসছে।

শতকরা ৯৫ ভাগ কাঁচা চামড়া এবং চর্মজাত দ্রব্যাদি, প্রধানত আধা পাকা ও পাকা চামড়া, চামড়ার তৈরি পোশাক এবং জুতা হিসেবে বিদেশে বাজারজাত করা হয়। অধিকাংশ চামড়া। চামড়ার প্রচুর চাহিদা থাকা সত্ত্বেও সিন্ডিকেট আর অব্যবস্থাপনার কারণে গত ২০১৯সালে চামড়া শিল্পে নেমে আসে চরম বিপর্যয় এতে করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ী এবং প্রকৃত বিক্রেতারা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তারই ধারাবাহিকতায় গত বছরের তুলনায় এবারও চরম বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। মূল্য কমেছে গত বছরের তুলনায় অর্ধেক । গতবছর যে চামড়াটি বিক্রি হয়েছে ৬০০টাকায় সেই চামড়া এবছর বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায়।যার কারনে চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে মৌসুমি ব্যবসায়ীরা।মাগুরার বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে দেখা যায় চামড়া নিয়ে চরম বিপাকে আছে ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন এতিমখানা, মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। মাগুরা নিশ্চিন্তপুর গ্রামের লাল্টু বিশ্বাস জানান আমরা একটি এতিমখানার জন্য কিছু চামড়া কালেকশন করেছি কিন্তু রাত দশটা বেজে গেল আমাদের চামড়াগুলো বিক্রি হচ্ছে না। তিন লক্ষ টাকা দামের একটি গরুর চামড়ার দাম হয়েছে মাত্র ৩০০ টাকা যাহা গতবছর বিক্রি হয়েছে ৬০০থেকে ৭০০টাকা। আর ছাগলের চামড়া ১০টাকা থেকে ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তিনি জানান এ কারণে আমাদের দেশের এতিমখানা , মাদ্রাসাগুলো অর্থ সংকটের মধ্যে রয়েছে । এই অবস্থা থেকে সরকার যথাযথ পদক্ষেপ না নিলে মৌসুমী ব্যবসায়ীরা এবং প্রকৃত চামড়া বিক্রেতারা চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
প্রকাশক কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত

Designed by: Nagorik It.Com