1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. banglaronusandhantv@gmail.com : বাংলার অনুসন্ধান : বাংলার অনুসন্ধান টিভি
বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৮:১২ অপরাহ্ন
"
ব্রেকিং নিউজ
শিরোনাম
মাগুরা সদর হসপিটাল গেটের সাকুরা ফার্মেসি এবং আমিরুল ফার্মেসি থেকে এম্পুল ফেন্টানিল ইনজেকশন জব্দ মাগুরার মহম্মদপুরে মধুমতি নদীতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ ফ্রান্সে নবী (সা) এর ব্যঙ্গ কার্টুন প্রদর্শনের প্রতিবাদে মাগুরায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মোঃ রিপন হোসেন মাগুরায় যুবদলের ৪২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত মাগুরায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত বিহারী লাল শিকদার নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার প্রস্তুতিমূলক সভা স্বেচ্ছাসেবক লীগের দপ্তর সম্পাদক হলেন আজিজুল হক আজিজ মাগুরায় গড়াই নদীতে শেখ রাসেল নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষককে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা 

নড়াইলে মাদ্রাসায় পঁচাখাবার খেয়ে ৮ শিশু শিক্ষার্থী হাসপাতালে

  • আপডেট করা হয়েছে শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০২০
  • ২৭ বার পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট বরাশুলা কওমী মাদ্রাসায় বাসী খাবার খেয়ে ৮ শিশু শিক্ষার্থী অসুস্থ হওয়েছে। শুক্রবার লিল্লাহ বোর্ডিংএর রাতের নষ্ট খাবার খেয়ে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়েছে অভিযোগ ভূক্তভোগীদের।

২১ আগোষ্ট (শনিবার) সকালে শিক্ষার্থীদের হাসপাতালে ভর্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে বরাশুলা কওমী মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রহমান বলেন, অসুস্থ ৮ শিশুকে ২১ আগষ্ট (শুক্রবার) রাতে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভূক্তভোগীরা জানায়, রাত ১০টার দিকে তাদের পঁচা ভাত, ডাল ও সবজি খেতে দেয়া হয়। খাবার অনুপোযোগি হওয়া সত্বেও বাধ্য হয়েই তারা এ দূর্গন্ধযুক্ত খাবার খেয়ে একে একে ৮জন শি’শু অসুস্থ হয়ে পড়ে।

এই বাসী খাবারের জন্যও শিক্ষার্থীদের মাসয়ারা টাকা দিতে হয় মাদ্রাসায়। তাদের সবারই পেটে ব্যথার এক পর্যায়ে ব’মি শুরু হয়। এ অবস্থায় কর্তৃপক্ষ খবর পেয়ে অসুস্থ শিক্ষার্থীদের সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ভর্তি করে নেন। তবে তাদের অবস্থা আজ দুপুর নাগাদ আশংকা মুক্ত বলে জানিয়েছেন সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আরএমও ডা: মশিউর রহমান বাবু।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ অবশ্য পঁচাখাবার পরিবেশনের কথা অস্বীকার করে বলেন গতকাল রাতের খাবরের পর ঐ শিক্ষার্থীদের দু একজন বমি করে। তার দেখা দেখি মোট ৮ জন শিশু শিক্ষার্থী একবার করে বমি করলে আমরা তাদের সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি। আজ (শনিবার) সকালে চিকিৎসক রাউন্ডে আসলে আট জনের মধ্যে একজন বাদে বাকী সবাইকে ছাড় পত্র দিয়ে দেয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
প্রকাশক কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত

Designed by: Nagorik It.Com