1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. banglaronusandhantv@gmail.com : বাংলার অনুসন্ধান : বাংলার অনুসন্ধান টিভি
সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৫ অপরাহ্ন
"
ব্রেকিং নিউজ
“সৈনিক ” সুবর্ণা চৌধুরী ব্যাপক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে আগামীকাল মাগুরা পৌরসভার নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ মাগুরায় প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা মাগুরার মহম্মদপুরের কৃতিসন্তান লেঃ কর্ণেল কাজী শরীফ উদ্দিনের  সেনাবাহিনীর কর্ণেল পদে পদোন্নতি মাগুরা যশোর মহা সড়কে দুর্ঘটনায় আহত ২ নিহত ১ সুখবর -আগামি ২১শে ডিসেম্বর ২০২০ থেকে চালু হচ্ছে দেশের সব থেকে আধুনিক ক্রুজ শিপ এম ভি বে ওয়ান। মাগুরা পৌরসভার নির্বাচনে আঃ লীগের মনোনয়ন পেলেন খুরশিদ হায়দার টুটুল ৬১ পৌরসভায় নির্বাচন : আ.লীগের মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত হচ্ছে আজ মাগুরায় ইয়াবা সহ মাদক কারবারি আটক বিজয় দিবস উপলক্ষে মাগুরা জেলা যুবলীগের বাইসাইকেল ও পতাকা র‌্যালী

আসুন নিজের বিবেক কে জাগিয়ে তুলি

  • আপডেট করা হয়েছে বৃহস্পতিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৫৫ বার পড়া হয়েছে

সম্পাদকীয়,শেখ তিতুমীর আকাশ

আমরা সবাই একজন করে অসাধারণ নারীর গর্ভেই জন্মেছি। আমার জীবনে আমার মা, বোন, স্ত্রী-কন্যা বড় অনুপ্রেরণার জায়গায় রয়েছে। আপনিও একটু খেয়াল করলে দেখবেন আমাদের সবার জীবনের গল্পই প্রায় একই রকম।

আমরা কখনো ভাবতেও পারিনা আমাদের প্রিয়জন অন্যকারো দ্বারা নির্যাতনের শিকার হোক।
আমরা কেউ না চাইলেও আমাদেরই সমাজের কিছু অসভ্য, অমানুষদের দ্বারা নারী-শিশু নির্যাতন এবং ধর্ষণের মত জঘন্য ঘটনার শিকার হচ্ছে।
নারী ও শিশু নির্যাতন, ধর্ষণের মত জঘন্য অপরাধের জন্য আসলে কোন শাস্তিই যথেষ্ট না।
নারী-শিশু নির্যাতন এবং ধর্ষণের ঘটনার বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে সর্বাত্মকভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে।

ধর্ষণের মত জঘন্য অপরাধের কঠিন শাস্তির পাশাপাশি সমাজে এমন অপরাধ বন্ধ করতে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তোলারও কোন বিকল্প নাই। তবে প্রথম শিক্ষাটা পরিবার থেকেই শুরু করতে হবে। আমরা যা কিছুই শিখি বা যতটুকু মূল্যবোধ অর্জন করি তা প্রথমে পরিবার থেকেই করি। তাই আমাদের সবারই দায়িত্ব রয়েছে আমাদের সন্তানকে ছোট বেলা থেকেই নারীর প্রতি সম্মান করতে শেখানো। পরিবার থেকে একটা শিশু যে শিক্ষা পাবে তা সে সারা জীবন ধারণ করবে।

এর পাশাপাশি খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চাটাও জরুরি। যে ছেলেটা খেলাধুলা করে, সংস্কৃতি চর্চা করে তার দ্বারা কোন নারী নির্যাতনের শিকার হতে পারে বলে আমি বিশ্বাস করিনা।
সামাজিক অবক্ষয় রোধে, মাদকাসক্তির বিরুদ্ধে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সমাজের সব ধরনের মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে।
স্কুল-মাদ্রাসার শিক্ষক এবং মসজিদ-মন্দিরের ইমাম-পুরোহিত সবাইকেই এগিয়ে আসতে হবে নারী-শিশু নির্যাতন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে।
একজন জনপ্রতিনিধি সাংবাদিক হিসেবে এটুকু বলতে পারি, আমাদেরকে আরো দায়িত্বশীলতার সাথে প্রতিটি এলাকায় নজর দিতে হবে।
প্রতিটি জেলা উপজেলা প্রতিটি ইউনিয়নের সাংবাদিক ও প্রশাসনদের দের বেশি ভূমিকা রাখতে হবে তার পর চেয়ারম্যান, মেম্বার এবং স্থানীয় নেতৃত্ববৃন্দকে সাথে নিয়ে সামাজিক এই অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে আমাদেরকে রুখে দাঁড়াতেই হবে।
নারী-শিশু নির্যাতক ও ধর্ষকের কোন ধর্ম-গোত্র বা রাজনৈতিক পরিচয় নাই। তার একটাই পরিচয় সে অসভ্য, অমানুষ।
একটা স্বাধীন দেশে নাগরিক হিসেবে আমাদের কে নিজেকে পুরো সমাজ কে বদলে দিতে হবে।

আজ দেখুন সরকার কে দোষ দিচ্ছে, একজন সুক্ষ্মদর্শী রাজনৈতিক নেতাকে দোষ দিচ্ছে কিছুল জ্ঞানহীন আন্দলোন কারী, এদের কোন ধর্ম নাই বিবেক নাই এরা একপ্রকার নষ্ঠ মানুষ, তানা হলে একটি উন্নয়নশীল দেশে একটি উন্নয়নের সরকার কে এই ভাবে দোষরূপ করতে কখনই পারে না।
ধর্ষণ করেছে কিছু মানুষ রূপী বাজে মনের মানুষ কিন্তু কিছু লোক রাস্তায় নেমে সরকার পতনের আন্দলোনের সূর্যোগ নেয় এদের কে বদলাতে হবে।

আমি একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে একজন সংবাদ কর্মী হিসেবে এদেশের সকল জাতির বিবেক দের সহযোগীতা চাই, সমাজ কে বদলে দিতে উন্নয়নের সরকারের পাশে থেকে কাজ করতে চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
প্রকাশক কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত

Designed by: Nagorik It.Com