1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. banglaronusandhantv@gmail.com : বাংলার অনুসন্ধান : বাংলার অনুসন্ধান টিভি
সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪২ পূর্বাহ্ন
"
ব্রেকিং নিউজ
“সৈনিক ” সুবর্ণা চৌধুরী ব্যাপক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে আগামীকাল মাগুরা পৌরসভার নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ মাগুরায় প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা মাগুরার মহম্মদপুরের কৃতিসন্তান লেঃ কর্ণেল কাজী শরীফ উদ্দিনের  সেনাবাহিনীর কর্ণেল পদে পদোন্নতি মাগুরা যশোর মহা সড়কে দুর্ঘটনায় আহত ২ নিহত ১ সুখবর -আগামি ২১শে ডিসেম্বর ২০২০ থেকে চালু হচ্ছে দেশের সব থেকে আধুনিক ক্রুজ শিপ এম ভি বে ওয়ান। মাগুরা পৌরসভার নির্বাচনে আঃ লীগের মনোনয়ন পেলেন খুরশিদ হায়দার টুটুল ৬১ পৌরসভায় নির্বাচন : আ.লীগের মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত হচ্ছে আজ মাগুরায় ইয়াবা সহ মাদক কারবারি আটক বিজয় দিবস উপলক্ষে মাগুরা জেলা যুবলীগের বাইসাইকেল ও পতাকা র‌্যালী

মাগুরায় ভাতের ভিটা

  • আপডেট করা হয়েছে রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০
  • ২২৯ বার পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট

মাগুরা সদর উপজেলা থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরে ফটকি নদীর উত্তর তীরবর্তী টিলা গ্রামে অবস্থিত একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনার নাম ভাতের ভিটা (Vater Vita)। ধারণা করা হয়, প্রায় ৩২১ খিস্টপূর্বে মৌর্য্য সাম্রাজ্যের তৃতীয় শতাব্দী থেকে গুপ্ত সাম্রাজ্যের সময়কাল পর্যন্ত টিলা গ্রামে একটি বৌদ্ধ সংঘ্যারাম প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছিল। সেই সময় এই অঞ্চলের শাসনকার্য পরিচালনা করার লক্ষ্যে একটি বিচারালয় ও অপরাধীদের সাজা দেওয়ার লক্ষ্যে টিলা গ্রামের পশ্চিমে একটি উঁচু জায়গা নির্মাণ করা হয়। স্থানীয়ভাবে এই স্থানটি ছোট টিলা বা ভাতের ভিটা নামে পরিচিতি পায়। বন্যায় সারাদেশের বিভিন্ন স্থান প্লাবিত হলেও টিলা গ্রামটি কখনো প্লাবিত হয় না। তবে স্থানীয়দের মতে, আধ্যাত্মিক এক দরবেশ এই ভিটা নির্মাণ করেছেন এবং সেই কারণে স্থানটি একটি পুণ্যস্থান হিসেবে বিবেচিত।

ভাতের ভিটার নামকরণের পিছনেও একটি বহুল প্রচলিত জনশ্রুতি আছে। অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী এক দরবেশ ফটকি নদীর তীরে এসে থামেন এবং নামায পড়ার প্রয়োজনে এক রাতের মধ্যে এখানে মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু করেন। নির্মাণ কাজের মাঝে খাবারের প্রয়োজনে ভাত রান্নার প্রস্তুতি নিলেও রান্না শেষ হবার আগেই রাতের নিস্তব্ধতা ভেঙ্গে পাখ-পাখালির কূঞ্জনে চারপাশ মুখরিত হয়ে উঠে। এই অবস্থায় মসজিদের কাজ অসমাপ্ত রেখেই দরবেশ চলে যান। সকালে সবাই দেখতে পায় অসমাপ্ত মসজিদ, রান্না করা ভাত এবং পাশেই ভাতের ফ্যান গড়িয়ে সৃষ্টি হওয়া পুকুর। সেই থেকে উঁচু এই টিলার নাম হয় ভাতের ভিটা। আর ভাতের ফ্যান গড়িয়ে একজায়গায় পুকুরের মত সৃষ্টি হয়েছে তাঁর নাম দেওয়া হয় ফ্যানঘ্যালী পুকুর।

প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের অধীনে খননকালীন এই স্থান থেকে গুপ্ত সাম্রাজ্যের একটি বৌদ্ধ সংঘ, ৪ ফুট লম্বা একটি হাত ও পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহারের মত বহুকক্ষবিশিষ্ট ছোট একটি ইমারতের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে। পরবর্তীতে ভাতের ভিটায় একটি মসজিদ নির্মাণ করা হয় এবং স্থানীয়রা এখানে নিয়মিত নামায আদায় করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
প্রকাশক কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত

Designed by: Nagorik It.Com